বন্দে নত শিরে, ভক্তি  প্রেম ভরে

কপাল ঠেকিয়ে ধরায়।
বর্ণিতে তবকীর্তি, আছে কিবা মম শক্তি
ইচ্ছা কভু মানেনা হায়, বিশাল জয় মজিয়ায়।
অব্যক্ত থাকিয়া প্রভু, ব্যক্ত করিবারে  
তব শক্তি সদা শৃঙ্খলে গড়ে।
রসসুধা জলে-শূন্য ডুবিছে অনিলে
মৃত দেহে জীবন দানে, সাজাইলে সংসারে।
সুশোভিত ধরা- সম্পদে ভরা
সৃজিলা গ্রহ নক্ষত্র প্রকাশে দিবাকর।
নিশিতে শশি জাগিয়া গগনে,
স্মরিতে তোমায় জনমে নরা-নর।
পরমাত্মা জীব দেহে, বুঝিতে কে পারে!
কৃপাসিন্ধু, রাম-রহিম ডাকে যেতায়।
তুমিই যে পতি, অসংখ্য ব্রহ্মান্ডে,
মৃত্যু দর্শাইয়া দাও স্মরাই,
কখনও মহাজন, কৃপাতে নিরঞ্জন
প্রচারে জীব তরে।
কেমনি ভোগীবে জীবন, রাখিয়া তোমাতে মন
ইহকাল পরকাল পরে।
Previous Post Next Post